বর্তমান সৌদি আরবের অবস্থা !!

সৌদি আরব আবদুল আয়েজ আল সৌদ এর নেতৃত্বে

by Md Limon
বর্তমান সৌদি আরবের অবস্থা !!

বর্তমান সৌদি আরবের অবস্থা !!

বর্তমানে সৌদি সৌদি আরব আবদুল আয়েজ আল সৌদ এর নেতৃত্বে একটি ইসলামিক রাজধানী রাষ্ট্র। সৌদি আরব পূর্ব আফ্রিকা এবং আশেরিয়া মহাদেশের মধ্যে অবস্থিত একটি দেশ। রাজধানী হল রিয়াদ। দেশটি ইসলামিক শাসনামলে চলছে এবং সৌদি আরব খ্যাতি অর্জন করেছে তাদের ধর্ম ও প্রথাগুলির জন্য।

সৌদি আরব আবদুল আয়েজ আল সৌদ এর নেতৃত্বে গঠিত হয়েছিল। তিনি ১৮৯১ সালে জন্মগ্রহণ করেন এবং তাঁর মৃত্যু ১৯৫৩ সালে হয়। তিনি একজন মুসলিম রাজা হিসাবে পরিচিত ছিলেন।

আবদুল আয়েজ আল সৌদ মুসলিম ধর্মাবলম্বী ছিলেন এবং ইসলামিক সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ করতেন। তিনি ১৯২৭ সালে একটি সাম্প্রতিক সরকার গঠন করেন এবং সেই সরকার সৌদি আরবের প্রথম স্বাধীন সরকার ছিল।

আবদুল আয়েজ আল সৌদ এর নেতৃত্বে সৌদি আরবে পেট্রোলিয়াম খনি খোঁজ এবং উৎপাদনে একটি পূর্বগামী বিপ্লব ঘটে। এছাড়াও তিনি সৌদি আরবের স্বাধীনতা এবং সম্প্রদায় উন্নয়নে গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি আল-হরামেইন শরীফে সম্পূর্ণভাবে শাসন করেন এবং সৌদি আরব একটি ইসলামিক রাষ্ট্র হিসাব

সৌদি আরবের প্রধান আর্থিক সম্পদ হল পেট্রলিয়াম। এটি বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পেট্রলিয়াম সম্পদ রাখে এবং এর উপজেলা মহাসাগরে অবস্থিত হল বিশ্বের সবচেয়ে বড় পেট্রলিয়াম সমূহের মধ্যে একটি।

সৌদি আরবের স্বাধীনতা ১৯৩২ সালে জেনে নেওয়া হয়। এরপর থেকে এই দেশ ব্যবসায়, শিক্ষা এবং আর্থিক উন্নয়নে প্রগতিশীল হয়ে উঠেছে। সৌদি আরবে প্রতিষ্ঠিত একটি পুরুষদল, আল শুরা কাউন্সিল

সৌদি আরবের স্বাধীনতা ১৯৩২ সালে ঘোষিত হয়। এই দিনটি সৌদি আরবের জন্মদিন হিসাবে পালিত হয়।

এই সময়ে সৌদি আরবে বিখ্যাত ব্যক্তি ইবনে সৌদ (আবদুল আয়েজ আল সৌদ) সংগঠন করেন এবং এর নেতৃত্বে একটি ইসলামিক রাজধানী স্থাপিত করেন। এই সময়ে দেশটি খনিজ খোঁজ করা শুরু করে যার মধ্যে পেট্রলিয়াম প্রধানত্ব রয়েছে। পেট্রলিয়াম খনি সৌদি আরবের অর্থনীতি এবং রাজস্বের একটি প্রধান উৎস হিসাবে কাজ করে।

সৌদি আরবে ইসলামিক শাসনামলে চলছে এবং আল শুরা কাউন্সিল নামে একটি পরমাণু কর্তব্য পালন করেন যা দেশের প্রধান নির্বাচিত সরকার হিসাবে কাজ করে। দেশের বিভিন্ন অংশে বিভিন্ন কারখানা এবং উৎপাদন কেন্দ্র রয়েছে যা একটি বিশাল একটি আর্থিক ক্ষেত্র হিসাবে কাজ করে। আরব সৌদি

আরবে বাংলাদেশ সহ অন্যান্য দেশের প্রায় ৬৭

বর্তমান সৌদি আরবের অবস্থা !!

বর্তমান সৌদি আরবের অবস্থা !!

লক্ষ মানুষ কর্ম সংস্থানে যুক্ত আছে।এর মধ্যে প্রায় ৪৩ লক্ষ মানুষ বাংলাদেশের। সৌদি আরবে ১৯৮১ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত একাধারে বাঙালি ও অন্যান্য দেশের মানুষ কাজ করার খুব আগ্রহ প্রোকাশ করতো।ঐ সময় সৌদি আরবে কোনো প্রোকার কাজের মজুরি নিয়ে ঘুরা ঘুরি অথবা দুর্নিতি ছিলো না। সৌদি আরবে

হ্যাঁ, বিশ্বের অনেক দেশে লক্ষ মানুষ কর্ম সংস্থানে যুক্ত আছে। কর্ম সংস্থান হলো ঐ সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান যেখানে মানুষকে চাকরি দেওয়া হয়। কর্ম সংস্থান সরকারী বা বেসরকারী হতে পারে এবং বিভিন্ন ধরনের কাজে জনবল নিয়োগ করে থাকে।

কর্ম সংস্থান একটি দেশের অর্থনীতি এবং বেকারত্ব সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যেমন বাংলাদেশে সরকারি কর্ম সংস্থানে বিভিন্ন মানুষকে চাকরি দেওয়া হয়, তেমনি বিভিন্ন দেশে সেই ধরনের প্রতিষ্ঠান রয়েছে যেখানে জনবল নিয়োগ করা হয়।

বাংলাদেশের মানুষ একাধিকবার ঢোকার পর আস্তে আস্তে কাজে চুরি বাটপারি করা সুরু করলো, আর সেই থেকে সৌদি আরবের মানুষ চালাক হতে শুরু করলো।২০০৭ সালের পর থেকে আমাদের আমাছা বাঙ্গালী সৌদি আরবে ঢুকতে থাকে আর সেই থকে সৌদির অবস্থা খারাপের দিকে নিয়ে যেতে থাকে।বর্তমানে সৌদিতে এখন বাঙালির জন্য নতুনভাবে কোনো ভিসা দিতে চায় না কারন তারা এখন বুঝতে পারতেছে বাঙ্গালীর পোজিশন এতোটা নিম্ন যে তাদেরকে কর্মচারি বানিয়ে বাঙ্গালী মালিক ভাব ধরে কাজ করে। আবার এখন সৌদিতে বারের অনুমতি প্রধান

করা হয়েছে। বাঙ্গালী আর পাকিস্তানিরা মিলে বারে গিয়ে মদ পান করে আর মাতারিগো নিয়া লাফা লাফি নাচা নাচি করে। সৌদির মদ খুব ভালো মানের মদ তারা বিশ্বের নামি দামি রাষ্ট্র থেকে এই মদ সংগ্রহ করে। যেমন,চিন, হংকং,করিয়ান,জাপান থেকে

সরাসরি সংগ্রহ করে। এই মদ দামিও মদ এই মদ পান করলে ২-৩ দিন পর্যন্ত নেশা কাটেনা। বাঙ্গালী পাকিস্তানিরা এই মদ পান করে আর মাতাল হয়ে ঠিক মত কাজ করে না শুধু মারা মারি করে আর পাগলামি করে। শুধু এই কারণে সৌদি আরোব আর আগের মতো সৌদি আরব নাই এই হলো বর্তমান সৌদির অবস্থা।

ভারতিয় উপমহাদেশে ইউরোপীয়দের আগমনের ইতিহাস থেকে পাকিস্তানি শাসন আমল

You may also like

1 comment

যে তিন ধরনের মেয়ে কখনোই বিয়ে করা উচিত নয়: - Mohajagotik December 24, 2022 - 2:56 pm

[…] সম্পর্কে সকল তথ্য নিম্নরূপ: বর্তমান সৌদি আরবের অবস্থা !! ২০২৩ সালে কেমন যাবে বাংলাদেশের […]

Reply

Leave a Comment